মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

পটভূমি

 

 

উত্তরবঙ্গ রাজশাহীর এক গৌরব গাঁথা স্থান হচ্ছে বাগমারা উপজেলা। কথিত আছে এখানে এক সময় বন-জঙ্গলে পরিপূর্ণ ছিল। বনে থাকতো ভয়ঙ্কর যত বাঘ-বাঘিনী। একদিন এক লোককে বাঘে আক্রমণ করলে তিনি তাঁর হাতে থাকা বদনা দিয়ে সেই বাঘ কে মেরে ফেলেন। ফলশ্রম্নতিতে এ উপজেলার নামকরণ হয় ‘‘বাগমারা’’। আবার শোনা যায় বৃটিশ আমলে বিস্তীর্ণ বন-জঙ্গল কেটে জনবসতি গড়ে উঠায় উপজেলার নামকরণ করা হয় ‘‘বাগমারা’’। এছাড়াও কথিত আছে বর্তমান বাগমারা থানা ভবন জমির উপর বিরাট একটি বাগান ছিল। বাগানটি কেটে থানা ভবণ নির্মাণের কারনেও অঞ্চলটি ‘‘বাগমারা’’ নামে পরিচিতি পায়। বাগমারার প্রাচীন জায়গা হিসেবে তাহেরপুর দেশ ও বিদেশে পরিচিতি লাভ করে। জানা যায় বাংলার বার ভূইয়ার অন্যতম তাহের ভূইয়া সদলবলে তাহেরপুর আসেন এবং তাঁর নামানুসারে ‘‘তাহেরপুর’’ নামকরণ হয়। তাহের ভূইয়া ইংরেজ শাসকদের খাজনা দিতে অস্বীকৃতি জানালে ইংরেজ সেনাবাহিনী তাহের ভূইয়াকে যুদ্ধের মাধ্যমে পরাজিত করে রাজা কংস নারায়ন কে খাজনার বিনিময়ে তাহেরপুরের রাজত্ব প্রদান করে। ১৪৮২ সালে রাজা কংস নারায়ন উপমহাদেশে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রথম শারদীয় দূর্গোৎসব পালন করেন। তখন থেকেই প্রতি বছর হিন্দু ধর্মে বিশ্বাসীরা তাদের ধর্মের প্রধান উৎসব হিসেবে শারদীয় দূর্গাপূজা পালন করে আসছে। বাগমারা উপজেলা প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৮৩ সালে। ঐতিহাসিক স্থানের মধ্যে তাহেরপুর এবং বীরকুৎসা উলেস্নখ্য যোগ্য।